বৃহস্পতিবার , অক্টোবর ১৭ ২০১৯
শিরোনাম

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মিয়ানমারের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টার সাক্ষাৎ

দ্বিপক্ষীয় আলোচনায় রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানের আশাবাদ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

বাংলাদেশ থেকে মিয়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলিমদের ফিরিয়ে নিতে সে দেশের কর্তৃপক্ষের প্রতি আবারও আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দ্বিপক্ষীয় আলোচনার মাধ্যমে উভয় দেশ রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান করতে পারবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন তিনি।

মিয়ানমারের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা থং তুন গতকাল মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করতে গেলে তিনি এ আশা প্রকাশ করেন।

সাক্ষাৎ শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের বৈঠকের আলোচনার ব্যাপারে অবহিত করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘দুই প্রতিবেশী দেশের মধ্যে সমস্যা হবে, এটা স্বাভাবিক। তবে আমরা আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান করতে সক্ষম।’ তিনি আরও বলেন, প্রায় ৩০ হাজার নিবন্ধিত রোহিঙ্গা শরণার্থী বাংলাদেশে বসবাস করছেন। তবে প্রকৃত সংখ্যা প্রায় ৪ লাখ। বর্ষা মৌসুমে তাঁরা চরম দুর্ভোগের শিকার হবেন। রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশ সব সহযোগিতা দিতে প্রস্তুত।

প্রধানমন্ত্রী মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে মাদক, বিশেষত ইয়াবা বড়ি পাচার সম্পর্কে সে দেশের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টার দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। জবাবে তিনি মাদক পাচার রোধে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

প্রধানমন্ত্রী সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে তাঁর সরকারের জিরো টলারেন্স নীতির কথা পুনর্ব্যক্ত করে বলেন, বাংলাদেশ কখনো কোনো সশস্ত্র গোষ্ঠী ও বিদ্রোহীদের প্রতিবেশী দেশের বিরুদ্ধে এ দেশের মাটি ব্যবহার করতে দেবে না।

মিয়ানমারের উপদেষ্টা থং তুন বলেন, তাঁর দেশ প্রতিবেশীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে চায়। দুই দেশের সামরিক বাহিনীর যোগাযোগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, নিরাপত্তা ইস্যুতে উভয় দেশ তথ্য বিনিময় করছে। তিনি দুই দেশের মধ্যে অর্থনৈতিক সহযোগিতা বৃদ্ধির ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

থং তুন মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে গ্যাস বিক্রি বিষয়ে বলেন, উভয় দেশ এ ব্যাপারে আলোচনা করতে পারে। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বাংলাদেশের চমৎকার উন্নয়নের প্রশংসা করেন তিনি।

বন্যা মোকাবিলায় সরকার প্রস্তুত

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বন্যা মোকাবিলায় সরকারের সব প্রস্তুতি রয়েছে। গতকাল ঢাকায় তাঁর কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে তিনি আরও বলেন, কিছুদিন আগে দেশের হাওর এলাকায় আকস্মিক বন্যা দেখা দেয়। বর্তমানে সিলেট এলাকায় যে বন্যা দেখা দিয়েছে, তা দেশের দক্ষিণাঞ্চলেও বিস্তৃত হতে পারে।

ন্যাশনাল ওয়েজেস অ্যান্ড প্রোডাক্টিভিটি কমিশন প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রতিবেদন পেশকালে তিনি এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আগস্টের শেষে দক্ষিণাঞ্চল প্লাবিত হতে পারে। তবে এ বন্যা মোকাবিলায় আমাদের সব প্রস্তুতি রয়েছে। খাদ্য, অন্য সামগ্রীসহ বন্যাদুর্গত এলাকার জনগণকে সহায়তায় আমরা পদক্ষেপ নিয়েছি।’

ন্যাশনাল ওয়েজেস অ্যান্ড প্রোডাক্টিভিটি কমিশনের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম খান প্রধানমন্ত্রীর কাছে এই প্রতিবেদন হস্তান্তর করেন। এতে ৬টি সেক্টরের ৯১টি শিল্পপ্রতিষ্ঠানের ৬০ হাজার শ্রমিকের জন্য নতুন বেতনকাঠামোর প্রস্তাব করা হয়েছে।

আইএইএর মহাপরিচালকের সাক্ষাৎ

আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থার (আইএইএ) মহাপরিচালক ইউকিয়া আমানো গতকাল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তাঁর কার্যালয়ে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন। এ সময় রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে বাংলাদেশকে সার্বিক সমর্থন ও সহযোগিতা প্রদানের আশ্বাস দেন আমানো।

বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের বলেন, পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে সরকার যে নিরাপত্তার ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে, তাতে আইএইএর মহাপরিচালক সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।